এফিলিয়েট মার্কেটিং করে এক মাসে আয় ৯৬,১৭,৪২০ টাকা বা ১,২০,২১৭.৭৫ ডলার!

0

ব্যাপারটা অবিশ্বাস্য হতে পারে, কিন্তু সত্যি। এক মাসে আয় ৯৬ লক্ষ সতেরো হাজার ৪ শত ২০ টাকা! ভাবা যায়? কিন্তু এটা সত্যি। কে এতো টাকা আয় করে? কীভাসে সেটা সম্ভব? চলুন আজকে এই ব্যাপারেই কথা বলা যাক। এই ইনকাম যিনি করেছেন তিনি এটা করেছেন এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে। সুতরা তাই শুরুতেই এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ে হালকা একটা ধারণা দেয়া যাক যারা একেবারে নতুন, তাদের জন্য।

এফিলিয়েট মার্কেটিং কী?

যদি সহজ ভাষায় বুঝতে চান তাহলে এভাবে সংজ্ঞাটা দিতে পারি- অন্য কারও একটা প্রোডাক্ট/সার্ভিস আপনি সেল করে দেবেন কাস্টমারের কাছে, বিনিময়ে প্রোডাক্ট/সার্ভিস অউনার আপনাকে একটা কমিশন দেবে। কী, ব্যাপারটা কি কঠিন মনে হচ্ছে? তাহলে চলুন একটু ওভারভিউ করা যাক।

কেন এফিলিয়েট মার্কেটিং সেরা?

কারণ, একমাত্র এফিলিয়েট মার্কেটাররাই বস। আর সবাই চাকুরীজীবী। তা ফ্রিল্যান্সার বলেন, ওয়েব প্রোগ্রামার বলেন কিংবা যেই লেভেলের কথাই বলুন না কেন, সব সেক্টরের স্কিল পার্সনরাই এফিলিয়েট মার্কেটারের কাছে কাজের জন্য যেতে বাধ্য। কারণ এফিলিয়েট মার্কেটাররা কোনো কাজ করেন না, তারা কাজ করান। কী, বিশ্বাস হয় না? এই সেক্টরে একটু খোঁজ-খবর নিলেই বিষয়টা ক্লিয়ার হবে আপনার কাছে।

কেন এফিলিয়েট মার্কেটিং ঝামেলাহীন?

কারণ, একটা প্রোডাক্ট/সার্ভিস বিক্রি করার পর আপনার আর দ্বায়বোধ নেই। সার্ভিস/সাপোর্ট দেয়ার দায়িত্ব প্রোডাক্ট অউনারের। অথচ আপনি যদি প্রোডাক্ট/সার্ভিস অউনার হন, তাহলে আপনার কতরকম ঝামেলা! তাই না? এসব দিক বিবেচনা করে এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর চেয়ে মজার আর কিছু নাই। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন: পৃথিবীর প্রায় সব এফিলিয়েট মার্কেটররাই পেসিভ ইনকাম করেন। আর ইনকাম যেহেতু অটোমেটিক হয়, বেশিরভাগ এফিলিয়েট মার্কেটাররাই পুরো পৃথিবী ঘুরে বেড়ান। সবচেয়ে বিলাসবহুল জীবন-যাপন করেন।

তাহলে কি এফিলিয়েট মার্কেটিং খুবই সোজা?

জ্বি না। মোটেও তা না। “যতো গুড়, ততো মিষ্টি” প্রবাদটা জানেন? যদি জেনে থাকেন তাহলে আপনাকে আর বুঝিয়ে বলার দরকার নাই। যারা ‍জানেন না, তাদের জন্য বলছি: যত সুখে থাকতে চাইবেন, ততো কষ্ট ভোগ করে সুখটা জমা করতে হবে। ক্লিয়ার? এফিলিয়েট মার্কেটিং ঝামেলাহীন, এফিলিয়েট মার্কেটাররা বস, এফিলিয়েট মার্কেটাররা অটো ইনকাম করেন কিন্তু সেটা শুরু থেকেই নয়, বুঝছেন? দুঃখের সাত-সমুদ্র আর তেরো নদী পার হয়েই সুখের দুনিয়ায় ঘুরে বেড়ান তারা।

কী ব্যাপার ভাই? আপনার সমস্যা কি? একবার বলেন সহজ, একবার বলেন কঠিন?

ভাইরে, ব্যাপার তো এটাই। এক মাসে ৯৬ লক্ষ প্লাস টাকা ইনকাম করেন যিনি, তিনি কতটা পরিশ্রম করে এখানে আসছেন তা তিনিই জানেন। তবে মজার ব্যাপার হলো: তিনি কিন্তু আপনার আমার মতো মানুষই। এবং তিনি এবং তারমতো আরও সবাই-ই তাদের অগ্রসর হবার কাহিনীগুলো অনলাইনে লিপিবদ্ধ করে গেছেন। যেগুলো পড়ে আমরা তাদের মতো অতোটা এফোর্ট না দিয়েও সহজে ইনকামের রাস্তায় ঢুকে যেতে পারবেন।

ভাই, লোভ দেখাচ্ছেন নাকি আমিও পারবো ইনকাম করতে?

যারা কাজ না করে অর্থের চিন্তা করে তারাই লোভী। আপনি যদি কাজ করতে রাজি থাকেন তাহলে এটা লোভ নয়। আপনি যদি পরিশ্রমী হয়ে থাকেন, আপনার মনের ভেতর যদি থাকে চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করার স্পৃহা তাহলে আপনার জন্যই এফিলিয়েট মার্কেটিং। আর আপনি যদি পছন্দ করেন নয়টা-পাঁচটা অফিস। গদবাঁধা কাজ। তাহলে দয়া করে এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে দূরে থাকুন ১০০ হাত। বুঝছেন?

তাহলে বলেন আমি কত টাকা ইনকাম করতে পারবো?

প্রথম শ্রেণী থেকে মাস্টার্স পর্য়ন্ত কত বছর? কম করে হলেও ১৭ বছর। ১৭ বছর পড়ালেখা করে ১৫ হাজার টাকা দামের চাকরির জন্য হাহাকার করে সবাই। তাহলে এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর নাম শোনার সাথে সাথে কেন চিন্তা করতেছেন এখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন? কেন আমাকে প্রশ্ন করলেন না- শিখতে কত দিন এবং কি কি লাগবে? কতদিন শেখার পর ইনকাম শুরু করতে পারবো? ওয়েল, ধরে নিলাম এই প্রশ্নটা আপনি করেছেন। আপনার জন্য জবাব হচ্ছে- দুই রকম পদ্ধতি জানা আছে আমার।

এফিলিয়েট মার্কেটিং আর্নিং পদ্ধতি # ০১: আজকে থেকেই আর্নিং শুরু। তবে যতটুকু কাজ করবেন ততটুকু ইনকাম।
এফিলিয়েট মার্কেটিং আর্নিং পদ্ধতি # ০২: দুই মাস পড়াশোনা, ৪ মাস প্রাকটিক্যাল। অর্থাৎ ৬ মাস স্টাডি, তারপর পরবর্তী ৬ মাস কাজ করবেন। তাহলে প্যাসিব ইনকাম করতে পারবেন।

এবার বলেন কোনটা আপনার পছন্দ? আমার কিন্তু দ্বিতীয়টা পছন্দ। প্রথম পদ্ধতি এপ্লাই করে গত বছর কিছু ইনকাম করেছি। কিন্তু রাত-দিন পরিশ্রম করে মাস শেষে ৬০০/৭০০ ডলার ইনকাম খুব অপ্রতুল মনে হতো আমার কাছে। এই জন্য ৭-৮ মাস স্টাডি করেছি এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর উপর। তারপর এখন যে প্রজেক্ট করেছি সেখান থেকে আলহামদুলিল্লাহ প্যাসিভ ইনকাম শুরু না হলেও দৈনিক ১/২ ঘণ্টা কাজের বিনিময়ে যা আসছে তা যথেষ্ট। এই মাসে আরেকটা নতুন প্রজেক্ট শুরু করেছি। আশা করছি আগামী এপ্রিল থেকে ইনকাম ডাবল হবে।

আপনি কি করবেন?

ইচ্ছে আছে এফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে একটা চেইন টিউন লেখার। যেখানে দেখানো হবে কীভাবে অল্প সময়ে এফিলিয়েট মার্কেটিং-এ ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

যদি বলি ১ মাস স্টাডি করার পর ২ মাস কাজ করবেন প্রাকটিক্যালি। অর্থাৎ চতুর্থ মাস থেকে ২০০-৫০০ ডলার ইনকাম করতে পারবেন, তাহলে কি আগ্রহী হবেন? যেটা ২০০ ডলার দিয়ে শুরু করবেন, বছর শেষে কিন্তু সেটাকেই ২০ হাজার ডলারে উন্নতি করতে পারবেন আপনি চাইলেই। আমি দেখাবো আমাজন কাজে লাগিয়ে কীভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন।

কী বলেন, শুরু করবো একটা চেইন টিউন? কারও আগ্রহ আছে?

ধন্যবাদ, কষ্ট করে টিউনটা পড়ার জন্য।
বি:দ্র: উপরে যার ইনকামের কথা বলেছি, তার নাম প্যাট ফ্লিন। তার অক্টোবর মাসে ইনকাম দেখানো হয়েছে। লিংকে ক্লিক করে আরও বিস্তারিত জানতে পারেন: প্যাট ফ্লিনের অক্টোবর মাসের ইনকাম

-------------------

লেখাটি সম্পর্কে আপনার সুচিন্তিত মতামত আমাকে আরও লিখতে উৎসাহী করবে। সুতরাং গঠনমূলক মন্তব্য করুন...

Comments are closed.

Facebook

Get the Facebook Likebox Slider Pro for WordPress
Close
আমাদের সাথে যুক্ত হোন
অনলাইন আর্নিং টিউটোরিয়াল নিয়মিত পেতে চান? আইডিয়াবাজ.কম-এর সাথে যুক্ত হোন নিয়মিত আপডেট পেতে।