শুধুমাত্র ক্লিক করেই ফেসবুক-ট্যুইটারসহ অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্ক থেকে ইনকাম করুন সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিতে

43

হ্যালো বন্ধুরা! কেমন আছেন? আশা করি সবাই ভালো আছেন।

আপনাদের জন্য শত ব্যস্ততার মধ্যেও এ পর্যন্ত অনেকগুলো টিউটোরিয়াল লিখেছি অনলাইন আয়ের উপর। কিন্তু আমার জানামতে হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া বাকী ম্যাক্সিমাম সবাই-ই ভালো করতে পারেননি। যদিও আমি জানিনা আসলে কারণ কি? আচ্ছা একটা ব্যাপার আমাকে বলুন: আপনারা কি কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চাচ্ছেন নাকি কাজ না করেই ইনকাম করতে চান?

সোশ্যাল ট্রিক্স-এর সাথে আমি সরাসরি জড়িত আছি। সুতরাং এখানে পেমেন্ট পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হবে না। হলে আমি হেল্প করতে পারবো। আপনারা যদি সঠিক নিয়মে কাজ করেন তাহলে পেমেন্টের ১০০% নিশ্চয়তা দিচ্ছি আমি।”

আমার সাফ সাফ কথা- আপনারা যদি কাজ না করে টাকা ইনকাম করার কথা ভেবে আমার এই সাইটে এসে থাকেন; তাহলে অনুগ্রহপূর্বক এখনই এখান থেকে সরে যান। আমার কাছে এমন কোনো পদ্ধতি নেই যেটা দিয়ে আপনি কাজ না করেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন। সুতরাং মাফ চেয়ে নিচ্ছি আগেই। আর যদি কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনাকে শতবার স্বাগতম। প্রয়োজনে হাতে-কলমে বুঝিয়ে দিতেও রাজি আছি। এমনকি সহজের চেয়ে সহজতর টিউটোরিয়াল আপনারা পাবেন। বাট কাজ অবশ্যই করতে হবে- কম কিংবা বেশি।

আজকে আপনাদের যেই ইনকামের ব্যাপারটা নিয়ে লিখছি; এরচেয়ে সহজ আর কিছু হতে পারে বলে আমার মনে হয় না। কাজ খুবই কম, খুবই সহজ! সারাদিন তো ফেসবুকেই থাকেন। সুতরাং আশা করা যেতে পারে এবার আপনারা সাকসেস হতে পারবেনই!

আজকে আমি যে সাইটটি নিয়ে লিখতে যাচ্ছি এর নাম হচ্ছে: SocialTrix.com। ওয়েবসাইটটির স্ক্রিনশট দেখুন:-
social trix website

সোশ্যাল ট্রিক্স কী?

সোশ্যাল ট্রিক্স একটি ওয়েবসাইট যেটা একটা ভায়া হিসেবে কাজ করে কাজদাতা এবং কাজ গ্রহীতার মধ্যে। অর্থাৎ এখানে একজন ক্লায়েন্ট বা বায়ার এবং অন্যজন ওয়ার্কার। আপনি এখানে যেমন অন্যদের ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক করে পয়েন্ট পেতে পারেন তেমনি আপনার ফ্যান পেজের জন্যও লাইক কালেক্ট করতে পারেন পয়েন্ট অন্যকে দিয়ে। এক্ষেত্রে দাতা এবং গ্রহীতা উভয়েই লাভবান হওয়ার সুযোগ রয়েছে। সোশ্যাল ট্রিক্স এজন্য আপনার কাছ থেকে কোনো চার্জ বা ফি নেবে না। আপনি শিউর থাকেন কোনো হিডেন ফি-ও নেই এক্ষেত্রে।

কীভাবে কাজ শুরু করবেন?

হ্যাঁ, সবই তো বুঝলাম। কিন্তু কাজ শুরু করবো কীভাবে? ওয়েল! এটা খুবই সহজ। সোশ্যাল ট্রিক্স-এ সাইন আপ করতে হবে শুরুতে। সাইন আপ করার জন্য এখানে ক্লিক করুন: সোশ্যাল ট্রিক্স ফ্রি সাইন আপ
সাইন আপ করা খুবই সহজ। নাম, ইমেইল, পাসওয়ার্ড ইত্যাদি কয়েকটি নরমাল তথ্য দিয়ে সাইন আপ করতে হয়। সাইন আপ করার পর আপনার ইমেইলটি চেক করুন; যে ইমেইল দিয়ে সাইন আপ করেছিলেন। যদি কোনো কারণ আপনার ইমেইলের ইনবক্সে মেইলটি না পান তাহলে জাঙ্ক বা স্প্যাম ফোল্ডার চেক করুন। ঐ মেইলটিতে একটি একটিভিশন লিংক আছে। ঐ লিংক-এ ক্লিক করে আপনার একাউন্ট একটিভ করতে হবে। অন্যথায় কাজ শুরু করতে পারবেন না। সুতরাং লিংক-এ ক্লিক করে একাউন্ট একটিভ করা জরুরি।

কাজ করুন ফেসবুক সোশ্যাল নেটওয়ার্কে

সাইন আপ কমপ্লিট! এখন সাইটে লগিন করুন। লগিন করার পর আপনি এরকম দেখতে পাবেন:-
social Trix Website after login

উপরের ছবিটার মতো আপনার এডমিন প্যানেল হবে। লগিন করার অবস্থায় আপনাকে সব কাজ করতে হবে। কীভাবে? ধরুন আপনি ফেসবুক লাইকের কাজ করবেন। দেখুন বাম দিকে “Earn Coins” একটা ট্যাব আছে। এটার নিচে লেখা আছে বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কের নাম। আপনি “Facebook”-এ ক্লিক করুন। একটা ড্রপ-ডাউন অপশন ওপেন হবে। এখান থেকে “Facebook Likes” বাটনে ক্লিক করুন। নিচের চিত্রের মতো একটা পেজ আসবে:-
Facebook Free Likes

এবার আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে লগিন করুন। তারপর সোশ্যাল ট্রিক্স সাইটে দেখুন অনেক ফেসবুক পেজ-এর লিংক বাটন আকারে আছে। প্রতিটা বাটনে “Like” বাটনে ক্লিক করলে একটা পপ-আপ ওপেন হবে। পপ-আপ ট্যাবে ঐ ফেসবুক পেজটা দেখাবে। ঐ পেজে লাইক করুন এবং পপ-আপ উইন্ডোটা ক্লোজ করে দিন। তাহলে ঐ পেজের জন্য যত কয়েন লেখা ছিল সেটা আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্টে জমা হবে। এভাবে এক এক করে সবগুলো ফেসবুক পেজ লাইক করুন। ঠিক একইভাবে অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কের জন্যও কাজ করতে পারবেন।

কত ইনকাম হবে?

কত ইনকাম হবে না বলে বলা উচিত- কত ইনকাম করতে পারবেন? কারণ এখানে সুনির্দিষ্ট কোনো বাইন্ডিংস নেই। আপনার যত ইচ্ছে ইনকাম করতে পারেন। এই সিস্টেমটা খুবই সহজ কিন্তু সময় সাপেক্ষ কাজ। ধীরে ধীরে ইনকাম বাড়বে। বর্তমানে এটা নতুন সাইট। মেম্বার কম। তাই ফেসবুক এবং অন্যান্য সোশ্যাল সাইটের সংখ্যাও কম। অবশ্য সুযোগ বেশি।
বর্তমানে এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি ৩ রকমভাবে টাকা ইনকাম করতে পারবেন: ১. পয়েন্টস সিস্টেম, ২. ডেইলি বোনাস এবং ৩. রেফারেল বা এফিলিয়েট মাধ্যমে। নিচে সংক্ষেপে বিষয়গুলো বর্ণনা করে ইনকামের একটা ধারণা দেয়া হলো:-

১. পয়েন্টস সিস্টেম: পয়েন্টস সিস্টেমটা উপরে বর্ণনা করেছি। আপনি অন্যদের ফেসবুক পেজ লাইক করে, প্রোফাইল ফলো করে কিংবা টুইটার ফলো করে, ইউটিউব ভিডিও দেখে বা সাবস্ক্রাইব করে অথবা অন্যদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে পয়েন্ট আর্ন করতে পারেন। এবং এই পয়েন্টসগুলো কনভার্ট করে ডলারে রূপান্তর করতে পারেন; যা আপনি সহজেই ক্যাশ করতে পারেন নির্দিষ্ট পেমেন্ট মেথডের মাধ্যমে।

২. ডেইলি বোনাস: চমৎকার আরেকটি সিস্টেম। আপনি যদি ফেসবুক পেজ বা অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্ক-এর কমপক্ষে ৫০টি লাইক বা ফলোয়ার বা ভিজিট-এর জন্য ক্লিক করেন তাহলে দৈনিক ১০০ পয়েন্টস পর্যন্ত বোনাস পেতে পারেন।

৩. রেফারেল বা এফিলিয়েট মাধ্যম: এটা আপনার জন্য একটা আশির্বাদ বলা যেতে পারে। এখনো সোশ্যাল ট্রিক্স ওয়েবসাইটটি আপনার বন্ধু-বান্ধব বা পরিচিতজনদের মাঝে পরিচিতি পায়নি। তাই আপনি তাদেরকে রেফার করুন। আপনার রেফারে যদি কেউ সাইন আপ করে তাহলে আপনি পাবেন ৫০ পয়েন্টস। এবং তিনি যত কাজ করবেন তার ১০% ইনকাম আপনি আজীবন পাবেন। শুধুমাত্র রেফারেল করেও আপনি সোশ্যাল ট্রিক্স থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তাহলে আপনার ইনকামের একটা ধারনা দেয়া যাক:-

১. পয়েন্টস সিস্টেমে আপনি দৈনিক কাজ করলেন (কমপক্ষে):
ফেসবুক পেজ লাইক: ১০০
ফেসবুক শেয়ার: ১০০
ফেসবুক ফলোয়ারস: ১০০
টুইটার ফলোয়ার ক্লিক: ১০০
টুইটার টুইট: ১০০
ইউটিউব ভিডিও ভি্উ: ১০০
ইউটিউব ভিডিও লাইক: ১০০
ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব: ১০০
ইউটিউব ভিডিও ফেবুরিটস: ১০০
ওয়েবসাইট ভিউ: ১০০
————————————————————–
মোট: ১০০০ ক্লিকস

প্রতি ক্লিক যদি আমরা সর্বনিম্ন ৪ পয়েন্টস করেও হিসেব করি তাহলে দাঁড়ায়: ১০০০ ক্লিকস x ৪ পয়েন্টস = ৪০০০ পয়েন্টস

২. ডেইলি বোনাস: আপনি প্রতিদিন পাবেন কমপক্ষে: ৫০ পয়েন্টস

৩. রেফারেল বা এফিলিয়েট সিস্টেম: প্রতিদিন যদি কম পক্ষে ১০ জনকেও রেফার করেন তাহলে ৫০ পয়েন্টস x ১০ = ৫০০ পয়েন্টস

তাহলে আপনার দৈনিক ইনকাম হলো: ৪০০০ পয়েন্টস + ৫০ পয়েন্টস + ৫০০ পয়েন্টস = ৪৫৫০ পয়েন্টস

প্রতিদিন আপনার আর্ন: ৪৫৫০ পয়েন্টস
৩০ দিনে আপনার আর্ন হলো: ৪৫৫০ পয়েন্টস x ৩০ দিন = ১৩৬৫০০ পয়েন্টস

সোশ্যাল ট্রিক্স ২৫০০ পয়েন্টস সমান ১ ডলার হিসেব করে। তাহলে আপনার ১ মাসে ইনকাম দাড়াবে:-
১৩৬৫০০ ভাগ ২৫০০ বা ৫৪.৬০ ডলার বা ৪২০৪.২০ টাকা (৭৭ টাকা প্রতি ডলার হিসেবে)।

এখানে শুধুমাত্র ৪টি নেটওয়ার্কে কাজ করে আপনি ৪০০০+ টাকা ইনকাম করলেন। এই সাইটে সর্বমোট ১০ টি নেটওয়ার্ক বর্তমানে আছে। অর্থাৎ আপনি চাইলে অনয়াসে এই সাইট থেকে ১০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে এই সাইটের মেম্বার খুব কম। ধীরে ধীরে বাড়বে। তখন আপনার ইনকামও বাড়বে এই নিশ্চয়তা আছেই।

এছাড়াও সোশ্যাল ট্রিক্সে আপনি সবই পাচ্ছেন বিনামূল্যে। কিন্তু আপনি ইচ্ছে করলে ভিআইপি মেম্বার হতে পারেন। তখন আপনার ইনকাম আরও বাড়বে। অবশ্য ভিআইপি মেম্বার হতে হলে আপনাকে পে করতে হবে।

কীভাবে পেমেন্ট পাবেন?

বর্তমানে সোশ্যাল ট্রিক্স শুধুমাত্র পেযা (পূর্বের এলার্ট পে) পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকে। তবে খুব শিগগিরই অন্যান্য পেমেন্ট গেটওয়ে এড করা হবে। এমনকি বিক্যাশ পেমেন্ট মেথড এড করারও সম্ভাবনা রয়েছে। তাহলে আপনার ইনকামের টাকা আপনি বিক্যাশেও সরাসরি নিতে পারবেন।

সুতরাং এখানে কাজ করতে হলে আপনার একটি পেযা একাউন্ট দরকার। যদি পেযা একাউন্ট না থাকে তাহলে এখানে ক্লিক করে একাউন্ট ওপেন করে নিন: পেযা ফ্রি একাউন্ট

পেমেন্ট উইথড্র করার জন্য আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্টে লগিন করুন। তারপর “Add Fund” বাটনে ক্লিক করুন। এখানে তিনটি অপশন আছে:- Add Funds, Coins to Cash এবং Withdraw Money.
Social Trix Payment Method

Add Fund হচ্ছে আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্টে যদি টাকা লোড করতে চান তাহলে এটা ইউজ করবেন। অর্থাৎ যদি কয়েন কিনতে চান কিংবা ভিআইপি মেম্বার হতে চান বা অন্যান্য কাজের জন্য ফান্ড এড করার জন্য।

Coins to Cash হচ্ছে আপনার অর্জিত পয়েন্টস বা কয়েনসগুলোকে কনভার্ট করে ডলারে রূপান্তর করার জন্য এই ট্যাবে ক্লিক করে এটা করতে পারবেন। উল্লেখ্য প্রতি ২৫০০ পয়েন্টস বা কয়েনস-এর জন্য আপনি ১ ডলার পাবেন।

Withdraw Money হচ্ছে আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্ট ব্যালেন্সে থাকা মানি আপনার পেযা একাউন্টে নেয়ার জন্য। অর্থাৎ আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্টে যত ব্যালেন্স আছে তা উইথড্র করতে এই ট্যাবটি ইউজ করবেন।

ব্যালেন্স উইথড্র করার ২টি শর্ত আছে:-
১. আপনার সোশ্যাল ট্রিক্স একাউন্টের বয়স কমপক্ষে ৩০ দিন হতে হবে। এবং
২. একাউন্টের ব্যালেন্স কমপক্ষে ৫ ডলার হতে হবে।

খেয়াল করুন! শুধুমাত্র প্রথমবারের জন্য ৩০ দিন। পরবর্তীতে যখনেই আপনার একাউন্টের ব্যালেন্স ৫ ডলার বা তার বেশি হবে আপনি সাথে সাথেই পেমেন্ট পেতে পারেন। মাস শেষ হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। কিচ্ছু না। সম্ভবত এতোবড় সুযোগ আর কোনো আর্নিং সাইট আপনাকে দেবে না। সুতরাং এটাও আপনার জন্য একটা বড় প্রাপ্তি বলা যেতে পারে। যখনই ইনকাম তখনই টাকা। নো লেট, নো হাংকি পাংকি!

সর্বশেষ কথা

আমার জানামতে এরচেয়ে সহজ আর কোনো আর্নিং সাইট নেই। হতে পারে এখানে ইনকাম কম। তবে নিশ্চয়তা আছে এবং এই কাজরে জন্য আপনাকে কোনো দক্ষতা অর্জন করতে হবে না। এবং অবশ্যই অবশ্যই ডাটা এন্ট্রি কাজের চেয়ে অনেক অনেক ভালো। সারাদিন ক্যাপচা এন্ট্র্রি করে যেখানে আপনি এক ডলার ইনকাম করতে পারবেন না সেখানে এই সাইটের মাধ্যমে ১-২ ঘণ্টা কাজ করেই ২-৫ ডলার বা তারও বেশি ইনকাম করা সম্ভব।

তো বন্ধুগণ! আজকে এই পর্যন্তই। অনেক ছোট করে লিখতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আপনাদেরকে ডিটেইলস লিখতে গিয়ে বড় হয়ে গেলো। লেখায় ভুল-ভ্রান্তি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। তারপরও যদি কোথাও বুঝতে কোনো সমস্যা হয়; নিচে মন্তব্যের ঘরে লিখুন। আমি চেষ্টা করবো আপনার জানার আগ্রহকে, সমস্যাকে সমাধান করতে।

ভালো থাকুন। আল্লাহ হাফেজ!

-------------------

লেখাটি সম্পর্কে আপনার সুচিন্তিত মতামত আমাকে আরও লিখতে উৎসাহী করবে। সুতরাং গঠনমূলক মন্তব্য করুন...